সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪

চট্টগ্রামে মনোনয়ন বাতিল ৩২ প্রার্থীর

চট্টগ্রামে মনোনয়ন বাতিল ৩২ প্রার্থীর

চট্টগ্রামে মনোনয়ন বাতিল ৩২ প্রার্থীর

মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২৩

 

 

৪৩ বার পড়া হয়েছে

প্রিয় পাঠকঃচট্টগ্রামে সংসদীয় ১৬টি আসনে যাচাই বাছাই শেষ।চট্টগ্রামে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের শেষ দিনে ঝরে গেছেন ১২ প্রার্থী। এর আগে প্রথম দিনে আরও ২০ প্রার্থী বাদ পড়েছিলেন। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামের ১৬টি আসনে ৩২ জন প্রার্থী ছিটকে পড়েছেন। বর্তমানে এসব আসনে মোট প্রার্থী রয়েছেন ১১৬ জন।ভোটারের তথ্য গরমিল, সেবা সংস্থার বিল বকেয়া, আয়করের রিটার্ন দাখিল না করা এবং ঋণ খেলাপিসহ বিভিন্ন অভিযোগে চট্টগ্রামের ১৬টি আসনের ৩২ জন প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।
সোমবার (৪ ডিসেম্বর) দ্বিতীয় দিনের মতো চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশন কার্যালয় ও জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে চট্টগ্রাম ৭, ১২, ১৪, ১৫ ও ১৬, ৯, ১০ ও ১১ আসনের মনোনয়ন যাচাই বাছাই করা হয়।

চট্টগ্রাম ১৫: ভোটার তালিকায় গরমিল থাকায় স্বতন্ত্র হয়ে সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় এমপি নদভীর সঙ্গে ‘টেক্কায়’ নামা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ মোতালেব সিআইপির মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। একই কারণে বাদ পড়েছেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ডা. আ ম ম মিনহাজুর রহমানও। আয়কর রিটার্ন না দিয়ে ঝরে গেছেন ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) প্রার্থী ফজলুল হক।

চট্টগ্রাম ১৬: বাঁশখালীতে আ’লীগের প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুজিবুর রহমান টিকে গেলেও ছিটকে পড়েছেন জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন পাওয়া চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র মাহমুদুল ইসলাম। ঋণ খেলাপির দায়ে তার মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। একই অভিযোগে ন্যাপের (মোজাফফর) প্রার্থী আশীষ কুমার সেনের মনোনোয়ন বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

চট্টগ্রাম ১২: পটিয়ায় আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান এমপি শামসুল হক চৌধুরী ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীসহ সাত প্রার্থী যাচাই-বাছাইয়ের চৌকাঠ পেরিয়েছেন। তবে বকেয়া বিদ্যুৎ বিল নিয়ে আটকে গেছেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের প্রার্থী এম এ মতিন। ভোটার তালিকায় গরমিলের কারণে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইলিয়াস মিয়া ও গোলাম কিবরিয়া চৌধুরীও প্রার্থী তালিকায় ঠাঁই নিজেদের ঠাঁই করে নিতে পারেননি।

চট্টগ্রামে ১৮ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল
চট্টগ্রামে ১৮ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

চট্টগ্রাম ১৪: চন্দনাইশে আ’লীগের প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম, স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে চেয়ারম্যান পদ ছেড়ে আসা আব্দুল জব্বার চৌধুরী ও অন্যান্য সব দলের প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা হয়েছে।

চট্টগ্রাম ৭ : রাঙ্গুনিয়ায় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে মনোনয়ন যাচাই-বাছাইয়ের বৈতরণী পার করেছেন সবাই।

চট্টগ্রাম ১০: চট্টগ্রাম ১০ এ আওয়ামী লীগের প্রার্থী মহিউদ্দিন বাচ্চুর সঙ্গে চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র মঞ্জুর আলমের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা হলেও বাদ পড়ে গেছেন আ’লীগ থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়া নগর যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। তিনজন ভোটারের তথ্যে গরমিল পাওয়ায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। এই আসনের আর দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ওসমান গনি ও ফয়সাল আমীন এবং বিএনএফের মঞ্জুরুল ইসলামও মনোনয়নের বৈধতা হারিয়েছেন।

চট্টগ্রাম ৯: কোতোয়োলী-বাকলিয়া নিয়ে এ আসনে বৈধতা পেয়েছে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলসহ সব প্রার্থীর মনোনয়ন।

চট্টগ্রাম ১১: চারবারের এমপি লতিফের বন্দর পতেঙ্গায় মনোনয়ন হারিয়েছেন রেখা আলম নামে এক প্রার্থী।

এর আগে শনিবার দিনব্যাপী যাচাই-বাছাইয়ে চট্টগ্রামের সংসদীয় আসন ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৮, ১৩’ এর মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই করা হয়। যেখানে আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট কয়েকজন স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ২০ প্রার্থী নির্বাচনে প্রার্থিতার যোগ্যতা হারিয়েছেন।

চট্টগ্রাম ১: মিরসরাইয়ে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। তাঁর নির্বাচনী এলাকার মোট ভোটারের ১ শতাংশের স্বাক্ষর সম্বলিত যে তালিকা জমা দিয়েছেন, তার মধ্যে ১০ জন ভোটার সম্পর্কে যাচাই-বাছাই করে তিনজন ভোটারের তথ্যে গরমিল পাওয়া গেছে। ওই তিন ভোটার দেশের বাইরে রয়েছেন।

চট্টগ্রাম ২ : আওয়ামী ঘরনার দুই প্রার্থীসহ তিনজনের মনোনয়ন বাতিল হয়। তাদের মধ্যে কানাডা আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম নওশের আলী, সাবেক ছাত্রনেতা প্রবাসী মোহাম্মদ শাহজাহান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রিয়াজ উদ্দিনের মনোনয়নও বাতিল হয়। তাদের মনোনয়নের সঙ্গে জমা দেওয়া ১ শতাংশ ভোটারের তথ্যে গরমিল পাওয়া গেছে।

চট্টগ্রাম ৩: সন্দ্বীপে ‘ভুয়া ভোটার’ দেখানোর অভিযোগে জাকের পার্টির নিজাম উদ্দিন নাছির ও বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তজোটের প্রার্থী আমিন রসূলের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।

চট্টগ্রাম ৪: সীতাকুণ্ড থেকে মনোনয়ন নেওয়া বর্তমান এমপি দিদারুল আলমের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। এই আসনে আ’লীগ দলীয় প্রার্থী এস এম আল মামুনের সঙ্গে হেভিওয়েট প্রার্থী ছিলেন তিনি। যদিও এর আগে নির্বাচন থেকে সরে আসার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। এছাড়া এই আসনের আওয়ামী লীগের আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ইমরানের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে ভুয়া ভোটার দেখানোয়। একই অভিযোগে মো. সালাউদ্দিন নামে এক স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। প্রার্থী হতে সম্প্রতি স্বাস্থ্যকর্মীর সরকারি চাকরি ছেড়েছেন তিনি।

চট্টগ্রাম ৫: হাটহাজারীতে নাছির হায়দার চৌধুরী, মোহাম্মদ শাহজাহান নামে দুই প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। ভোটার-সমর্থকদের তথ্যে গরমিল পাওয়ায় তাদের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম ৬: রাউজানে স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিউল আজম মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে ভোটার তালিকায় ভুল তথ্য দেওয়ায়।

চট্টগ্রাম ৮: চান্দগাঁও-বোয়ালখালী আসনে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম ও ওমরগনি এমইএস কলেজ ছাত্রসংসদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আওয়ামী লীগ নেতা আরশেদুল আলম বাচ্চুর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। ভোটার-সমর্থকদের ভুল তথ্য দেওয়া, স্বাক্ষর না করা, মৃত ভোটারের সাক্ষর, ভোটার বিদেশে থাকাসহ নাম অভিযোগে তাদের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। এই আসনের আরেক আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয় কুমার চৌধুরী কিষানেরও মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ কংগ্রেসের মহিবুর রহমান বুলবুল ঋণ খেলাপি হওয়ায় এবং আরেক প্রার্থী মঞ্জুর হোসেন বাদল হলফনামাসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা না দেওয়ায় মনোনয়নও বাতিল হয়।

চট্টগ্রাম ১৩: আনোয়ারা-কর্ণফুলী আসনে একাউন্টের নথি জমা না দেওয়ায় খেলাফতে আন্দোলনের মৌলভী রশিদুল হকের মনোনয়ন স্থগিত রাখলেও পরে তা বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

ট্যাগ :

আরো পড়ুন