মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩

করোনা সংকটওে প্রবাসী আয় উর্ধ্বমূখী

করোনা সংকটওে প্রবাসী আয় উর্ধ্বমূখী

করোনা সংকটওে প্রবাসী আয় উর্ধ্বমূখী

সোমবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২০

 

 

৩১৫ বার পড়া হয়েছে

প্রিয় পাঠক নিউজঃসারা বিশ্বে করোনা সংকটে যখন অর্থনীতির চাকা থমকে যাচ্ছে সেখানে ব্যতিক্রম প্রবাসী শ্রমিকরা।এই দুঃসময়েও তাদের রেমিট্যান্স পাঠানোর হার শুধু সন্তোষজনক নয়, আশাব্যন্জক।চলতি মাসের প্রথম ১২ দিনেই তারা এক মিলিয়ন ডলারের বেশী রেমিট্যান্স পাঠিয়েছে।
নিউজ পোর্টাল সারাক্ষণ এর খবরে প্রকাশ বাংলাদেশের ইতিহাসে এটি একটি বিরল ঘটনা উল্লেখ করে সোমবার (১৬ নভেম্বর) অর্থ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা গাজী তৌহিদুল ইসলামের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের জুলাই থেকে ১২ নভেম্বর পর্যন্ত মোট রেমিট্যান্স এসেছে ৯.৮৯১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে প্রায় ৪৩.৪২ শতাংশ বেশি। ২০১৯-২০ অর্থবছরে ওই সময়কালে রেমিট্যান্স এসেছিল ৬.৮৯৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। প্রবাসী আয়ের এ ঊর্ধ্বমুখী ধারা অব্যাহত থাকার পেছনে সরকারের সময়োপযোগী ২ শতাংশ নগদ প্রণোদনাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব রয়েছে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল গণমাধ্যমকে বলেন, ‘অপ্রত্যাশিত অভিঘাত কোভিড-১৯-এর প্রভাবে বড় ধরনের অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে সারা বিশ্ব। এই সময়টাতে রেমিট্যান্স যোদ্ধারা কষ্ট করে অর্থ পাঠিয়ে আমাদের অর্থনীতিকে গতিশীল রাখতে চালকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন। ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে বিদেশ থেকে বৈধ পথে রেমিট্যান্স তথা প্রবাসী আয় পাঠালে ২ শতাংশ নগদ প্রণোদনার ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। এর পরপরই রেমিট্যান্স বাড়তে শুরু করলে অনেকেই বলতে শুরু করলেন, এগুলো ঠিক নয়, থাকবে না, টেকসই নয়। চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাস যখন অসাধারণ এবং অবিশ্বাস্য গতিতে রেমিট্যান্স অর্জিত হচ্ছিল, তখন কর্মীরা তাদের কাজকর্ম বা ব্যবসা গুটিয়ে দেশে ফিরে আসছেন- বিভিন্ন মন্তব্য করতে শুরু করলেন তারা। সেই সমস্ত লোকদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থাও তাল মিলিয়ে বলতে শুরু করল, এ প্রবাহ ঠিক নয়, টেকসই হবে না। কিন্তু প্রণোদনা ঘোষণার পর থেকে আজ পর্যন্ত রেমিট্যান্স প্রবৃদ্ধির যে প্রবাহ, তাতে তাদের ভবিষ্যদ্বাণী ভুল প্রমাণিত হয়েছে। এবং আমরা যে সঠিক ছিলাম, আরো একবার তা প্রমাণিত হলো। চলতি নভেম্বরের ১২ তারিখ পর্যন্ত প্রবাসী আয় এসেছে এক বিলিয়ন ডলারেরও বেশি, যা দেশের ইতিহাসে মাত্র ১২ দিনে কখনো অর্জিত হয়নি। গড়ে প্রতি মাসে দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি প্রবাসী আয় অর্জন ইতিহাসের বিরল ঘটনা।’

ট্যাগ :

আরো পড়ুন